করোনা আক্রান্তদের ম’র্মা’ন্তিক পরিস্থিতির বর্ণনা দিলেন নার্স!

পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইক্যুইপমেন্ট (পিপিই) পড়ে ক,রোনা রোগীর সঙ্গে সেলফি তুলে ম’র্মা’ন্তিক কিছু কথা সামাজিক মাধ্যমে লিখেছেন একজন নার্স। জ্যাক স্যাভোয়ী নামের ওই ব্রিটিশ নার্স আইসিইউ-য়ে লাইফ সাপোর্টে থাকা ক,রোনা আক্রা’ন্তদের ম’র্মা’ন্তিক পরিস্থিতির বর্ণনা দিয়েছেন। জ্যাক সোভেয়ী লিখেছেন, এ ধরনের পোস্ট আর কখনোই লিখতে চাই না। কিন্তু হাসপাতা’লের আইসিইউতে যে ধরনের অ’ভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে গেছি, তা কোনোভাবেই ভুলতে পারছি না। কিন্তু এখনো ক,রোনাকে বিশাল সংখ্যক মানুষ যে পাত্তা দিচ্ছেন না, তাই খেয়াল করেই এটি লিখতে হলো।

তিনি আরো লিখেছেন, যেদিন থেকে যু’ক্তরাজ্যে ক,রোনা রোগীর সংখ্যা বাড়তে লাগলো, আমি অনলাইন থেকে বিভিন্ন আর্টিকেল পড়ে দেখলাম, কিভাবে নিজেকে আরো সুরক্ষিত রাখা যায়। কারণ একজন আইসিইউ নার্স হিসেবে আমা’র সুরক্ষা নিশ্চিত করার বিকল্প নেই। আমি মানসিকভাবেও প্রস্তুত হতে থাকি। পিপিই যেভাবে পরিধান করা দরকার, নিয়ম মেনে সেটাও করছি। তবে এখানে কাজ করতে এসে এর আগে কখনো মানসিকভাবে এতোটা ভ’য় পাইনি।

তিনি বলেন, ক,রোনা রো’গীরা স্বাভাবিক নয়। সাধারণ মানুষের মতো কোনো আচরণ তারা করে না। আর ততক্ষণ তারা এই অস্বাভাবিক আচরণ করে যতক্ষণ পর্যন্ত তাদের ক,রোনা নেগেটিভ প্রমাণ না হয়। তিনি আরো বলেন, ছবিতে আমাকে যে পিপিই পরে থাকতে দেখছেন, ক,রোনা আক্রা’ন্ত রোগী এই পরিস্থিতিতে সাধারণত কোনো মানুষকে দেখছে। যখন আম’রা থাকছি না, তখন রোগী একাই থাকছে। তিনি বলেন, আমা’র হৃদয় বারবার ভে’ঙে যাচ্ছে। ভীষণ খা’রাপ লাগছে তাদের নিয়ে কাজ করতে গিয়ে। সেই সঙ্গে তাদের চোখেমুখে সারাক্ষণ একটা উৎকণ্ঠা লক্ষ করছি। একমাত্র এই রোগীদের ক্ষেত্রেই তাদের পরিবারের লোকজনকে আসতে দেওয়া হচ্ছে না।

আবার তাদেরকে একপর্যায়ে লাইফসাপো’র্টে নেয়া হলেও আরেক ধরনের উদ্বেগ কাজ করছে। এই অসময়ে মানসিক শক্তি অনেক বেশি দরকার। কিন্তু ক,রোনা আক্রা’ন্ত রোগীদের সেই মানসিক শক্তি নিজের থেকেই তৈরি করে নিতে হচ্ছে। আর তাকে এতে সহায়তা করছে নার্স ও ডাক্তাররা। এই ভ’য়াবহ পরিস্থিতি এড়াতে সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে জ্যাক বলেন, নার্স থেকে শুরু করে হাসপাতা’লের কর্মীরা ক,রোনা আ’ক্রান্তদের কেবিনে প্রবেশ করতেই এক ধরনের ভ’য় পাচ্ছে। আমি এবং আমা’র সহকর্মীরা ক্লান্ত। আমাদের মধ্যেও ভ’য় কাজ করছে।

তার পরেও আম’রা এই জনস্বাস্থ্য সঙ্ক’টের মধ্যেও কাজ করে যাবো। পরিস্থিতি নির্বিশেষে আম’রা প্রতিটি দিনই রোগীদের জন্য লড়াই করবো। তবে দয়া করে বিনা প্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের হয়ে নিজে এবং অন্যদের আক্রা’ন্ত করে আমাদের লড়াইকে আরো কঠিন করে তুলবেন না। তিনি অনুরোধ করেছেন, নিজে ঘরে থাকুন, কাছের মানুষদেরও ঘরে রাখতে চেষ্টা করুন এবং যারা আ’ক্রান্ত হয়েছে এবং যারা আক্রা’ন্তদের বাঁ’চাতে ল’ড়াইয়ে নেমেছে- তাদের সবার জন্য দোয়া করুন।

জ্যাকের ফেসবুক পোস্টের নিচে একজন মন্তব্য করেছেন, জ্যাক তুমি এবং তোমা’র সহকর্মীরা আসলেই নায়ক। তোম’রা যা করছ তার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। তোমা’র পরিবারের জন্য হলেও নিরাপদ থাকো।

Check Also

এই ছোট্ট মেয়ে পেলেন বিশ্বের সেরা সুন্দরী শিশুর শিরোপা, রইল তার আসল পরিচয়

নীল চোখের ছোট্ট পরী সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। জন্মানোর পর থেকেই তার ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *