Breaking News

এক ধুন্দলেই পাঁচ রোগের সমাধান!

দেশীয় সবজির মধ্যে ধুন্দল বেশ জনপ্রিয়। নানান পুষ্টি উপাদানে ভরপুর এই সবজিটি দামে কম এবং সহ’জলভ্য হওয়ায় প্রায়ই খাওয়া হয়। এটি লতানো উদ্ভিদ থেকে পাওয়া যায়। এর রয়েছে নানান স্বাস্থ্য উপকারিতা। স্বাস্থ্য ঠিক রাখার পাশাপাশি বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধসহ ত্বকের জন্যই বেশ কার্যকরী এটি। বাইরের দেশগুলোতে জুকিনি নামে পরিচিত এটি। দক্ষিণ আ’মেরিকাসহ বর্তমানে জা’পান, চীন, রোমানিয়া, ইতালি, তুরস্ক, মিশর এবং আর্জেন্টিনার বাসিন্দারা চাষাবাদ করে।

গবেষকদের মতে, জুকিনি বা ধুন্দল ত্বকে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ পুষ্টির যোগান দেয়। এতে রয়েছে পানি, ভিটা’মিন সি, ভিটা’মিন এ, ফোলেট এবং বিটা ক্যারো’টিন, প্রো’টিন, ক্যাল’সিয়াম, আয়র’ন, ম্যাগনে’সিয়াম, ফসফ’রাস, পটা’সিয়াম, সো’ডিয়াম, সেলেনি’য়াম।

জেনে নিন এর কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা-হ’জম ক্ষমতাকে উন্নত করে: এটি ডায়েটারি ফাইবার সমৃদ্ধ হওয়ায় পেটের নানাবিধ সমস্যা ও কো’ষ্ঠকাঠিন্য ঠিক করে। হ’জম ক্ষমতাকে উন্নত করতে সহায়তা করে। পাশাপাশি অ’ন্ত্রের স্বাস্থ্যকেও ঠিক রাখতে সাহায্য করে।

ক্যা’ন্সার প্রতিরোধ করে: ধুন্দলে থাকা প্রচুর পরিমাণে বিটা-ক্যা’রোটিন এবং ভিটা’মিন সি। ক্যা’ন্সারের জী’বাণু থেকে শরীরকে রক্ষা করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে।

হা’র্ট ভালো রাখে: এতে ক্যা’লরির পরিমাণ অনেক কম থাকে এবং ফোলেট, পটা’শিয়াম ও ম্যাগনেসি’য়ামের পরিমাণ বেশি থাকে। যা হা’র্ট’কে ভালো রাখতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতে থাকা ফাইবার স্ট্রো’ক হওয়ার ঝুঁ’কি হ্রাস করতে সহায়তা করে।

দৃষ্টিশক্তি উন্নত করে: ধুন্দলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটা’মিন সি এবং বিটা ক্যারো’টিন। যা আপনার চোখের দৃষ্টি উন্নত করতে সাহায্য করে। এছাড়াও এতে থাকা লুটেইন এবং জে’ক্সানথিন-এর মতো অ্যা’ন্টিঅক্সি’ডেন্ট বয়সজনিত চোখের সমস্যাগুলো রোধ করতে পারে।

ওজন নিয়ন্ত্রণে সহায়ক: এতে স্টা’র্চ ও কার্বোহা’ইড্রেট কম থাকে এবং ফাইবার ও জলের পরিমাণ বেশি থাকে। তাই এটি স্বল্প ফ্যাটযু’ক্ত খাবার হিসেবে বিবেচিত হয়। এর ফলে এই সবজিটি অল্প সময়ের মধ্যেই শরীরের ওজনকে নিয়’ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

নাকের পলিপাস থেকে মুক্তি মিলবে তিন উপায়ে

নাকের এই সমস্যাটি নিয়ে অনেকেই ভুগে থাকেন। দীর্ঘদিন ধরে সর্দি, কাশি বা এলার্জির কারণে বিনা চিকিৎসায় থাকলে পলিপাস হতে পারে। পলিপাস মূলত দুই ধরনের হয়ে থাকে- ইটময়রেল ও মেক্সিলারি এন্ট্রোকনাল পলিপ। প্রথমটি নাকের উপরের সেতু হিসেবে কাজ করে। অনেকগুলো কোষের সমন্বয়ে তৈরি একটি ঝিল্লি। যেহেতু কোষের দেয়ালগুলো পাতলা থাকে তাই এগুলোতে পানি জমে ফুলে যায়। যার ফলে নাক প্রায় বন্ধ হয়ে যায় এবং নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। এই পলিপটি হওয়ার জন্য দায়ী মূলত এলার্জি।

অন্যদিকে, দ্বিতীয় পলিপটি অ্যালার্জির মাত্রাতিরিক্ত সংক্রমণের ফলে হয়ে থাকে। এনট্রোকনাল পলিপ সাধারণত নাকের পেছনের দিকে এরপর গলায় গিয়ে বাড়তে থাকে। এর ফলে পুরো নাক বন্ধ হয়ে যায়। এই পলিপগুলো বৃদ্ধি পাওয়ায় একসময় অস্ত্রোপচার করতে হয়। তবে প্রাথমিকভাবে নাকের পলিপাস শনাক্ত হলে ঘরোয়া তিন উপায়েই তার সমাধান করতে পারেন। জেনে নিন কীভাবে-

হলুদ
হলদে রঙা এই মশলাটিই পারে পলিপাসের সমস্যার সমাধান ঘটাতে। কারণ এতে রয়েছে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানসমূহ। যা শারীরিক বিভিন্ন সংক্রমণ থেকে বাঁচায়। এক গবেষণার তথ্যমতে, হলুদ এলার্জির সমস্যা সমাধান করতে পারে। এজন্য প্রতিদিনের খাবারে এক থেকে দুই চা চামচ হলুদের গুঁড়া মিশিয়ে খান। এর পাশাপাশি হলুদের চা ও পান করতে পারেন। এছাড়াও হলুদের গুঁড়া পানিতে কিছুক্ষণ ফুটিয়ে অতঃপর মধু দিয়ে পান করুন।

রসুন
এই ছোট্ট উপাদানে রয়েছে অনেক ওষুধি গুণ। গবেষণায় দেখা গেছে, পাকস্থলীর কার্যক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি অ্যান্টিবায়োটিক হিসেবেও কাজ করে রসুন। যে কোনো ধরনের প্রদাহ কমাতেও সাহায্য করে এটি। নাকের পলিপাসের সমস্যায় এটি বেশ কার্যকরী এক উপাদান। রান্নায় রসুন ব্যবহারের পাশাপাশি প্রতিদিন কাঁচা খাওয়ার অভ্যাস গড়ুন। রসুনের গুঁড়া হালকা গরম পানিতে মিশিয়েও প্রতিদিন পান করতে পারেন।

আদা
রসুনের মতো আদাতেও উপকারী সব উপাদান রয়েছে। ‘এসএ ২০১৩’ এর গবেষণায় জানা যায়, আদায় রয়েছে অ্যান্টিমাক্রোবিয়াল ও সংক্রমণবিরোধী উপদানসমূহ। নাকের পলিপাস সমস্যার সমাধানে রান্নায় নিয়মিত আদার গুঁড়া ব্যবহার করুন। এছাড়াও আদার চা পান করুন প্রতিদিন।
সূত্র: হেলথলাইন

Check Also

ছোটদের পছন্দের মুচমুচে আলুর চিপস তৈরির সহজ পদ্ধতি জেনে নিন

উপকরণঃ ২টি বড় আলু, ৩টেবিল চামচ লবণ, ১ চা চামচ বিট লবণ, ১/২ চা চামচ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.