আমার ত্বকের মেসতা দূর হলো যেভাবে!

মুখের ত্বকে (skin) মেছতা এখন সচারাচর সব যায়গায় দেখা যায়। বলা যায় এটা একটি কমন সমস্যা। এই লালচে দাগ (spot) ত্বকে একবার এলে তা দূর করতে অনেক কষ্ট হয়। অনেক সময় অনেকের ত্বকে (skin) দীর্ঘস্থায়ী হয়ে যায়। ত্বকের সৌন্দর্য হারাতে বসে এই কারনে।

২০-২৫ বছর বয়সের পর মেয়েদের বিশেষ করে বিবাহিত মহিলাদের যাদের বাচ্চা হয়েছে, যারা পিল ব্যবহার করেন, তাদের এই হরমোনের কারণে মুখের দুই পাশের গালে খয়েরি রঙের, বাদামি রঙের দাগ (spot) দেখা যায়।

মেসতার চিকিৎসা কি?
বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় যে পুরো ভালো হয় না। কিছু না কিছু রয়ে যায়। ২০ ভাগ, ৩০ ভাগ থেকেই যায়।

মেসতা হলে করণীয় কী?
মেসতা হলে খুব একটা করনীয় কিছু নেই। রোদে গেলে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন, যাতে এটি আর না বারে। অন্য কিছু ব্যবহার করলে ত্বকের (skin) আরও ক্ষতি হতে পারে। তাই এটা না করাই ভালো। স্টেরয়েড বেশিদিন ব্যবহার করলে মুখের ত্বক (skin) নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এই জন্য আমরা পরামর্শ দিই একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সে যেন ওষুধটি ব্যবহার করে। জিসকা কোম্পানির মেলাট্রিন ক্রিম লাগালে মেছতা ভালো হয়!

ঘরে বসেই কিভাবে মেসতা দূর করবেন সম্পূর্ণ ঘরোয়া উপায়ে

মেসতা নিয়ে অনেক মহিলা ও মেয়েরা সমস্যায় (problem)ভুগে থাকেন, বিশেষ করে মধ্যবয়সী মহিলাদের জন্য এটি বেশি সমস্যা (problem)। তাদের জন্য আজ থাকছে মেসতা দূর করার একটি প্যাক।

মেসতার সমস্যায় (problem)অনেকেই ভুগে থাকেন, আমাদের গ্রুপে এটা নিয়ে অনেক পোস্ট দেখা যায়। আপনাদের জেনে রাখা ভালো মেসতা হওয়ার মূল কারণ হচ্ছে অপরিচ্ছন্ন ত্বক। ঘরোয়া উপায়ে ত্বক পরিস্কার করার একটা উপায় নিয়ে আজকের পোস্ট। আসুন দেখে নেওয়া যাক।

যা যা লাগবে – কাঁচা হলুদ বাটা ১ চা চামচ, ১ চা চামচ লেবুর রস।

কিভাবে ব্যবহার (use)করবেন – প্রথমে কাঁচা হলুদ ও লেবু এক সাথে ভালো ভাবে মিশিয়ে । এবার যে যে যায়গায় মেসতা রয়েছে সেখানে ভালোভাবে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি (water) দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এই প্যাক ব্যবহার করতে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। গোসলের আগে এই প্যাক ব্যবহার (use)করবেন। এই প্যাক ব্যবহার করার পর ৩-৪ ঘন্টা রান্নাঘর বা রোদে যাবেন না। প্রতিদিন এই প্যাক ব্যবহার (use) করুন। যতদিন পর্যন্ত দাগ না কমে ততদিন পর্যন্ত ব্যবহার (use) করতে পারেন।

Check Also

হটাত করে নাক-কান-গলায় কিছু ঢুকে গেলে কী করবেন? জেনে রাখুন।

অনেকসময় না বুঝেই শিশুরা কিছু জিনিস নাক-কান কিংবা গলায় দিয়ে ফেলে। অনেক সময় তা বিপজ্জনকও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *