জীবনের স’বচেয়ে যে ১১টি গু’রুত্বপূর্ণ শিক্ষা মানুষ দেরিতে শেখে!

মানুষ তার বয়সের এক পর্যায়ে যেয়ে আফসোস করে, অনুশোচনা করে। কিন্তু এর কারণ কি! একজন ব্য’ক্তির জীবনের সমস্ত সময় কে’টে যাওয়ার পর সে যখন তা অতীতের ভুল সিদ্ধা’ন্তগুলওর কথা ভাবে, ঠিক তখনি তার কন্ঠ এমন ভার হয়ে যায়।

তাই বলে সবাই এমন ভুল করলে চলবে কি করে! আপনিও যাতে ভবিষ্যতে আমন অব’স্থায় না প’ড়েন সে জন্যই আপনার করণীয়গুলো জে’নে নিন-

১) সময়ের সঠিক ব্যবহারঃ সময় আপনার জীবনের মহান চিকি’ৎসক আবার জীবন নাশকারীও হতে পারে। এসব নির্ভর করে আপনার বর্তমান বিবেচনার উপর। হারিয়ে যাওয়া সময় আর কখনো ফি’রে পাবেন না। তাই সময়ে কাজ সময়ে করার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

২) নিজে’র রুটিন তৈরী করুনঃ নিজে’র দৈনিক কাজে’র জন্য একটি সুন্দর রুটিন থাকা জরুরী। তাহলে আপনি নিজেই আপনার কাজ খুব সহজেই করে নিতে সক্ষম হএবন। এতে করে আপনার মুল্যবান সময় ন’ষ্ট হওয়ার কোন সম্ভাবনা থাকবে না।

৩) ঝুঁ’কি নিনঃ জীবনের যে কোন সিদ্ধা’ন্ত নেওয়ার পরেই তা বাস্তবে প’রিণত করার জন্য দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হয়। অনেক ক’ঠিন মু’হূর্তের সম্মু’খীন হতে হয়। যে জীবনের পথ চলার এই ঝুঁ’কি নিতে পারবে না, তার পক্ষে সুন্দর জীবনের আশা করাও সম্ভব নয়।

৪) নিজে’র মনের কথা শুনুনঃ নিজে’র মন যা বলে তা মেনে কাজ করলেই মানুষের জীবনের পরিতৃপ্তি মেটে। পরিবার বা কাছের মানুষদের কথা রাখতে যেয়ে অনেক ক্ষেত্রেই মানুষ তার নিজে’র ইচ্ছার বা শখের বাইরে কাজ করে বসে। আর তা আজীবন তাকে তিলে তিলে কষ্ট দেয়।

৫) কাজকে ভালোবাসুনঃ আপনি যে কাজই করেন না কেন, আপনার কাজে’র প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থাকা উচিৎ। কাজে’র প্রতি আপনার একাগ্রতা আপনার জীবনের ধারাবাহিকতাকে ধ’রে রাখে। এছাড়া আপনাকে দেখে অনেকেই সেই শিক্ষা নেবে।

৬) অ’ভিযোগ করার প্র’বণতা ব’ন্ধ করুনঃ কোন বাচ্চা শি’শুর মতো যে কোন কথাতেই অ’ভিযোগ বা দোষ ধ’রানোর স্বভাব ব’ন্ধ করুন। তা না হলে এটি আপনাকে অন্যের কাছে অনেক নিচু মা’নসিকতার পরিচয় দেবে।

৭) নীরবতা বজায় রাখাঃ আপনি অনেক সময় ভুল করে কারো সামইনে আপনার প্র’তিক্রিয়া দেখান। এটি আদৌ আপনার উচিত নয়য়। কেউ ভুল করলে আপনার নীরবতা তাকে অনেক বড় শিক্ষা দিতে সক্ষম।

৮) সুন্দর জীবন উপভো’গ করুনঃ আপনি আপনার জীবনের ভারসাম্য হার‍্যে ফেললে সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে ব্য’র্থ হবেন। তাই আপনার নিজে’র মতো করেই বেঁ’চে থাকার জন্য সবচেয়ে সঠিক পথটি বেছে নিন।

৯) হার না মানাঃ আপনাকে হয়তো অনেক সময় অনেক সংক’টময় অবস্থার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। কিন্তু আপনি যদি সে প’রিস্থিতির কাছে হার মেনে বসে থাকেন তাহলে আপনি আপনার জীবনের কাছেও হার মানতে বাধ্য হবেন।

১০) টাকা সমাধান নয়ঃ কেউ টাকা দিয়ে সুখ কিনতে পারে না। আম’রা অনেক সময় সমৃদ্ধি আনতে প্রধান উপকরন হিসেবে আমাদের স্বপ্ন, স’স্পর্ক, সময় এবং আরও অনেক কিছু দা’বি করি। কিন্তু সে সমৃদ্ধি মানে এই নয় যে আপনি প্রকৃতভাবে সুখি হবেন।

১১) ক’ঠোর পরিশ্রমঃ চেহারা দেখিয়েই কখনো কারো জীবনে সাফল্য আসে নি। বরং ক’ঠোর পরিশ্রম আর সাধনার ফলে মানুষের জীবনের কাঙ্ক্ষিত সাফল্য আসে। তাই যত দ্রুত পারেন নিজে’র জীবনের লক্ষ্যে পৌঁছাতে ক’ঠোর পরিশ্রম শুরু করুন

Check Also

পরকীয়া কি সামাজিক নাকি মানসিক রোগ?

পরকীয়া একটি সুন্দর সংসার ও সমাজকে ছারখার করে দিচ্ছে। পরকীয়ার কবলে পড়ে ধ্বংস হচ্ছে সংসার, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *