Breaking News

বিয়ের আগে যেসব খাবার ভূলেও খাবেন না!

বিয়ে প্রত্যেকটি ছেলে-মেয়ের জীবনে একটি বহুল প্রতিক্ষীত আশার নাম। বিয়ে ছাড়া প্রত্যেক ছেলে-মেয়েই যেনো অস’ম্পূর্ণ জীবন-যাপন করেন। আর এই বিয়ে নিয়েও থাকে নানান স্বপ্ন।

বিয়ের আগে এটা করা উচিদ ওটা করা উচিত নয় এমন কথা বাড়ির মুরুব্বিদের মুখে অনেকে শুনে থাকবেন। তবে বিয়ের আগে সত্যি যেসব খাবার খাওয়া উচিত নয়, আজকে সেটায় জা’নাবো।

একটি স্বা’স্থ্য বিষয়ক ওয়েব সাইটে বিয়ের আগে যেসব খাবার খেতে না করা হয়েছে নিচে সেগুলোই তুলে ধ’রলাম।

কফি: স্ট্রেস কমানো জন্য কফি খুবই উপকারি। কিন্তু বিয়ের অন্ত’ত এক মাস আগেই ছাড়তে হবে কফি। কারণ এ সময় বেশি ঘুমের খুব প্রয়োজন। কফি খেলে ঘুমের ব্যাঘাত ঘ’টে এবং চেহারায় ক্লান্তির ছাপ পড়তে পারে। অ্যাসিডিটির স’মস্যাও দেখা দিতে পারে। তাই বিয়ের আগে কফিকে না বলুন।

শুকনো ফল: এ ধ’রনের ফল স্বা’স্থ্যকর হলেও বিয়ের আগে খাওয়া যাবে না। কারণ শুকনো ফলে ফ্রুক্টোজ ও গ্লুকোজে’র পরিমাণ বেশি থাকে। যা খেলে ওজন বাড়তে পারে।

কার্বনেটেড পানীয়: সফট ড্রিঙ্কের মধ্যে চিনির পরিমাণ বেশি থাকে। যা শ’রীরের ওজন বাড়ায় এবং স্বা’স্থ্যের ক্ষ’তি করে। তাই বিয়ের আগে কার্বনেটেড পানীয় দূ’রে রাখু’ন।

জাঙ্ক ফুড: মন ভালো করার জন্য পিজ্জা, বার্গার, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই এর জুড়ি নেই। কিন্তু এই খাবার গুলো হ’জমের স’মস্যা বাড়ায়। তাই এই খাবার গুলো না খাওয়াই ভালো।

জে’নে নিন যে ১০টি কারণে বেশী ভালো ছেলেরা প্রেমিকা পায় না!

ছেলেটি খুব ভালো। নম্র-ভদ্র স্বভাবের, কারো সাথে খা’রাপ ব্যবহার করে না, লেখাপড়ায়ও ভালো। অন্যদিকে ক্যারিয়ার সচে’তন, মা-বাবার খেয়াল রাখে, সমাজে সকলেই তাঁদেরকে ভালো ছেলে হিসাবে জানে।

একটু লক্ষ্য করলেই দেখবেন যে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই ভালো ছেলেগুলোর প্রেমিকা হয় না। বা প্রেমিকা হলেও স’স্পর্ক স্থা’য়ী হয় না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মন ভা’ঙার যন্ত্রণা ছেলেটি একা বহন করে বেড়ায়। কেন হয় এমন? সেই প্রশ্নের জবাব রইলো এই ফিচারে।

১) গায়ে পড়া স্বভাব নেই: ভালো ছেলেরা শুধু মেয়ে কেন, কারো সাথেই গায়ে প’ড়ে আলাপ ক’রতে পারেন না। এমনকি কেউ আলাপ ক’রতে এলেও অনেকেই নিজে’র মাঝে গুটিয়ে থাকেন। ফলে তাঁদের পরিচিত মানুষের পরিধি হয় অনেক কম। আর মেয়েদের সাথে পরিচয়ও হয় কম।

২)তারা ছলকলা বোঝে না: প্রেম ক’রতে ও কোন মেয়েকে প্রেমে ফেলতে গেলে একটু কৌশল, একটু ছলকলা জানতেই হয়। বলাই বাহুল্য যে ভালো ছেলেরা এসব থেকে একশ হাত দূ’রে থাকেন এবং এগুলো বোঝেনও না। প্রেমের সপ্ত ছলকলা এদের রপ্তের বাইরেই থেকে যায়।

৩) ভালো ছেলেরা “বোরিং” হয়: মেয়েদের একটা চিরকালের আগ্রহ আছে একটু খা’রাপ ছেলেদের প্রতি। তাঁদের প্রেমিকা হওয়াকে মেয়েদের কাছে একটা চ্যালেঞ্জ মনে হয়। অন্যদিকে ভালো ছেলেদেরকে তাঁদের চোখে মনে হয় “বোরিং”।

৪) মায়ের কথা মেনে চলে: বেশিরভাগ ভালো ছেলে মায়ের কথা খুব শোনে। মায়ের পছন্দ ছাড়া বিয়ে করবো না, কিংবা সব সিধান্তে মাকে শামিল করে তারা। এই ব্যাপারটা বেশিরভাগ মেয়ে পছন্দ করে না।

৫) ক্যারিয়ার নিয়ে বেশী সচে’তন: বেশিরভাগ ভালো ছেলেই নিজে’র লেখাপড়া ও ক্যারিয়ার নিয়ে খুব ব্যস্ত থাকেন। আর এই সবের মাঝেই হারিয়ে যায় প্রেম ও অন্যান্য ব্যাপার। যখন বুঝতে পারেন, ততক্ষণে দেরি হয়ে গেছে।

৬) মিথ্যা বলতে পারে না: প্রেমের স’স্পর্কে টুকটাক নির্দোষ মিথ্যা থাকেই। নিজে’র স’স্পর্কে একটু বাড়িয়ে বলা, নিজেকে একটু হিরো সাজিয়ে উপস্থাপন করা ইত্যাদি ভালো ছেলেরা পারেই না একদম। ফোলে মেয়েরাও পটে না সহজে।

৭) শুরুতেই সিরিয়াস হয়ে যায়: কারো সাথে প্রথম প্রথম ডেটিং-এই এই ধ’রণের ছেলেরা খুব বেশী সিরিয়াস হয়ে যায়। মেয়েটির ওপরে অধিকার ফলাতে থাকে। আর এটাই স’স্পর্কটাকে সামনে এগোতে বাঁ’ধা দেয়।

৮) প্রচ’ণ্ড আবেগী হয়: বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভালো ছেলেরা হয় প্রচ’ণ্ড আবেগী ও স্প’র্শকাতর। এরা খুব অভিমানী স্বভাবেরও হয়। তাই তুচ্ছ কারণে এদের স’স্পর্ক ভাঙে এবং নতুন স’স্পর্ক হয় না।

৯) খা’রাপ মেয়েদের খপ্পরে প’ড়ে: বেশিরভাগ ভালো ছেলেই সত্য ও মিথ্যার মাঝে পার্থক্য বুঝতে পারে না। ফলে তারা পু'রুষ লোভী কিছু খা’রাপ মেয়েদের খপ্পরে প’ড়ে। এবং অন্য মেয়েদের উপর থেকেও বিশ্বা’স হারিয়ে ফে’লে ।

১০) স’স্পর্কভীতি কাজ করে: প্রেম করলে কী হবে? যদি বিয়ে না ক’রতে পারি? বাসায় জানলে কী হবে? কীভাবে প্রপোজ করবো… স’স্পর্ক নিয়ে ইত্যাদি হরেক রকম ভীতি কাজ করে অনেকের মনেই। আর এর ফলে তাঁদের প্রেম করাটাই হয়ে ওঠে না।

Check Also

নিজের স্ত্রী ব্যাগে পেন খুঁজতে গিয়ে স্বামী এমন জিনিস দেখতে পেল যেটি দেখে তাঁর হুঁশ উড়ে গেল

একটি সম্পর্কের সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল বিশ্বাস। বিশ্বাস না থাকলে কোন সম্পর্ক ভালো জায়গায় থাকতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.