আমার মেয়ে বিয়ের আগে কারো সাথে মিলিত হলে কষ্ট পাবো না: মেয়েকে নিয়ে মায়ের স্ট্যাটাস

সম্প্রতি এক নারী তার মেয়েকে নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন ওই চিঠিতে ব্যাপকভাবে মানুষ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে এটি রীতিমত ভাইরাল হয়ে গেছে তিনি তার স্ট্যাটাসে জানিয়ে দিয়েছেন যে তার মেয়ে যদি বিয়ের আগে বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক করে তবে তিনি কোন কষ্ট পাবেন না কিন্তু যদি তার প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগে যদি সে এই কাজ করে তবে তিনি কষ্ট পাবেন

এবং তিনি আরও লিখেছেন যদি 18 বছরের পর ভালোবাসার মানুষের সাথে তার মেয়ে যদি সম্পর্ক করে তবে তিনি কোন কষ্ট পাবেন না সে তার জীবন এনজয় করুন Evana Shams এর সেই ভাই’রাল স্ট্যাটাস-“আমা’র মে’য়ে (14) বিয়ের আগে ’”’সে’’ক্স করলে আমি ক’ষ্ট পাবো না। তবে ১৮ হওয়ার আগে করলে ক’ষ্ট পাবো। আঠেরোর পর আমি চাইবো শুধুমাত্র/একমাত্র ভালোবাসার মানুষের সাথে ’’সে’”ক্স করুক, এবং এঞ্জয় করুক অ্যাক্টিভ পার্টি”সিপেন্ট হিসাবে এবং দুজনে লয়াল থাকুক (যদিও ডিসিশন তার, আমি শুধু অ্যাডভাইস দিতে পারি)।

এভাবে, আলটিমেটলি হাসব্যান্ড হওয়ার মতো কাউকে না পাওয়া পর্যন্ত সে যদি আরও ছে’লে ট্রাই করে, কোনো অ’সুবিধা নাই। ভুল মানুষের সাথে থাকার চেয়ে, কিছু ট্রাই করে পছন্দের মানুষ পাওয়া জরুরি। যে ছে’লে ইনট্যা’ক্ট হাইমেন খুঁজে সেই ছোটলোক আমা’র মে’য়ের স্বামী হওয়ার যোগ্য না। আমা’র চোখে এটাই ন্যায়, এটাই মানবিক, এটাই সৎ চরিত্র, এটাই স্রষ্টার তৈরী শরীরের প্রতি সম্মান…”! স্ট্যাটাসটিতে ১৬ ঘন্টায় ২৩ হাজার রিয়্যাকশন এসেছে। এতে হাহা পড়েছে ১৬৬৩০টি, অ্যাংরি পড়েছে ৩৭০০টি এবং লাভ পড়েছে ১৭৯৬টি। স্ট্যাটাসটি শেয়ার হয়েছে ৩৯০০ বার।

ইভানা শামস নামের এক নারী তার মেয়েকে নিয়ে যে স্ট্যাটাসটি দিয়েছেন সেটি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং ব্যাপকভাবে আলোচনা চলছে তার স্ট্যাটাস নিয়ে অনেকেই তাকে নারীবাদী হিসেবে আখ্যা দিতে শুরু করেছেন এবং অনেকেই আবার বলছেন যে সে স্ট্যাটাস দিয়েছে নিতান্ত মানুষের মনোযোগ পাওয়ার জন্য এবং তার ফ্যান ফলোয়ার বাড়ানোর জন্য স্ট্যাটাসে সে তার মেয়ের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের ব্যাপারটি কে সমর্থন দিয়েছে জেটি বাংলাদেশের মানুষের কাছে কখনো গ্রহণযোগ্য নয়।

Check Also

শি’খে নিন ডাল রান্নার পারফেক্ট কৌশল

ডাল তো আপনারা সবাই বাসায় রান্না করেন। অনেকে আবার প্রতিদিনও বাসায় ডাল রান্না করে থাকেন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *