Breaking News

সরকারি চাকরিজীবীদের পেনশন নিয়ে নতুন প্রজ্ঞাপন

সরকারি চাকরিজীবীদের অবসরোত্তর ছুটি (পিআরএল) নিয়ে অধিকাংশ সময়ই বিভ্রান্ত দেখা দেয়। সে বিভ্রান্তি দূর করতে নতুন করে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে অর্থ বিভাগ।রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) অর্থ বিভাগের প্রবিধি অনুবিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব খালেদা নাছরিন স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

সাধারণত অবসরে যাওয়ার এক বছর আগে অবসর প্রস্তুতিমূলক ছুটিতে (এলপিআর) যান সরকারি চাকরিজীবীরা। এলপিআর শেষ হওয়ার পর তারা যান অবসরে। এই অবসরের নামই অবসরোত্তর ছুটি (পিআরএল)।

তবে কেউ কেউ এলপিআরে থাকতেই পিআরএলে যান, সেক্ষেত্রে পেনশন, আর্থিক সুবিধা, অবসরের তারিখ, এলপিআর শুরুর তারিখ এবং চূড়ান্ত অবসর শুরুর তারিখ নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা দেয়।

অর্থ বিভাগ থেকে জারি করা ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, এলপিআরকে পিআরএলে রূপান্তর করলে পিআরএলকাল পেনশনযোগ্য চাকরি হিসেবে গণ্য হবে না। তবে ওই সরকারি কর্মচারী এলপিআরে থাকার সময় যেসব সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার যোগ্য, পিআরএলে গেলেও তিনি ওগুলো পাবেন।

একটি উদাহরণ তুলে প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, যেমন ক-এর জন্মতারিখ ১৯৬২ সালের ১ জানুয়ারি। ক-এর ৫৯ বছর বয়স পূর্ণ হবে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর এবং ওই দিনই তিনি অবসরে যাবেন। ছুটি পাওনা সাপেক্ষে ক-এর পিআরএল শুরু হবে অবসরে যাওয়ার পরদিন, অর্থাৎ ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে।

প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়েছে, ক ১২ মাস পিআরএল ভোগ করলে তার ছুটি শেষ হবে ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বর এবং তার চূড়ান্ত অবসরে যাওয়ার তারিখ হবে ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি। তবে পিআরএল ভোগ না করলে ক-এর চূড়ান্ত অবসরে যাওয়ার তারিখ হবে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর।

Check Also

নিজের স্ত্রী ব্যাগে পেন খুঁজতে গিয়ে স্বামী এমন জিনিস দেখতে পেল যেটি দেখে তাঁর হুঁশ উড়ে গেল

একটি সম্পর্কের সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল বিশ্বাস। বিশ্বাস না থাকলে কোন সম্পর্ক ভালো জায়গায় থাকতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.