৭টি গো’পন কাজ যা মেয়েরা একা থাকলেই করে

জেনে নিন সেই কাজ গুলো যেগুলো মেয়েরা কখনোই শি’কার করে না। ১) গো’পনাঙ্গে পরিবর্তন আনার পর অনুশোচনা আশা:- অনেক সময় মেয়েরা উ’ত্তেজিত হয়ে গিয়ে তাদের গো’পনাঙ্গ সেভ করে ফেলে।

কিন্তু এতে অনেকটাই ক্ষ’তি হতে পারে প্রথমে হয়তো ক্ষণিকের জন্য ম’সৃণতা পাওয়া যেতে পারে কিন্তু তারপরেই ভ’য়ঙ্করভাবে চু’লকানি শুরু হয়ে যায় । কিন্তু তারাই অ’ভিজ্ঞতার শি’কার হওয়ার পরেও বয়ফ্রেন্ডের সাথে কোন সম্পর্কে লি’প্ত হওয়ার আগে ঠিক

এই কাজটাই পুনরায় করে। ২) অনেক মেয়েদেরই বিশ্বাস ব্রা সহজে নোং’রা হয় না:- অত্যন্ত অলস প্রকৃতির মেয়েরাই তাদের ব্যবহৃত ইনার বা ব্রা অনেক দিনই না কেচেও দিনের পর দিন ব্যবহার করা যায় ।

তাই পরিমাণে অনেক ব্রা থাকলেও আমরা একটি ব্রা দিনের পর দিন না ধুয়েই পড়ে থাকে। ৩) স্টালকার সিনড্রোম:- আসলে না’রী চরিত্রের একটি প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো তারা অতীত থেকে বেরিয়ে আসতে পারে না। কারণ তারা আ’বেগ প্রবন হয় বেশি।

৪) মেয়েদের পোশাক পরিধানের উপর ও’য়াক্সিং করা নির্ভর করে- বরাবরই মেয়েদের অপছন্দের জিনিস হল ও’য়াক্সিং এবং সেভিং । তারা যদি খো’লামেলা পোশাক না পরে তাহলে আর ও’য়াক্সিং করে না। কারণ ওয়া’ক্সিং ব্যপারটা বড়ই য’ন্ত্রণার।

তাই এদের শীতকালটাই বড় প্রিয় হয় কারণ এই সময় খোলামেলা পোশাক পরতে হয় না তাই তারা ও’য়াক্সিং এবং শে’ভিং অ’ভয়েড করে চলে সোয়েটারের জন্য। ৫) নাক খোটে সবাই, এবং মেয়রাও- যখন মেয়েরা দেখে কাউকে না

খুঁ’টতে তাদের সামনে তখন তাদের বরই ঘে’ন্না লাগে অথচ মেয়েরাও এই কাজ করে। কিন্তু তারা সবার সামনে সেটা করে না। ৬) মেয়েরাও রোজ স্নান করে না- অনেক সময় মেয়েরা মাথার চুল না ভিজিয়ে শুধুই গা ধুয়ে কাজে বেরিয়ে যায় তারপরে মাথায় খুশকি হলে শ্যাম্পু ব্যবহার করে ।

খুব ঠান্ডায় অনেক সময় স্নান না করে শুধুমাত্র গোপনা’ঙ্গ গুলো ভালো করে ধুয়ে পা’রফিউম লাগিয়ে বেরিয়ে যায়। হ্যা মেয়েরাও স্নান করে না। ৭) কাপড় কাচতে অনী’হা দেখা যায়-

মেয়েরা এক জামা বেশ কয়েকদিন না ধুয়ে পড়ে থাকে। কাপড় কাচা অনেক ঝামেলার আর বেশিরভাগ মেয়েই এসব ঝামেলায় পড়তে চান না। তাই মাসের পর কাপড় জামা লন্ড্রিতে দিয়ে আসে।

Check Also

পরকীয়া কি সামাজিক নাকি মানসিক রোগ?

পরকীয়া একটি সুন্দর সংসার ও সমাজকে ছারখার করে দিচ্ছে। পরকীয়ার কবলে পড়ে ধ্বংস হচ্ছে সংসার, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *