হানিমুনে গিয়ে স্বামীকে মারধর করে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়েছে নববধূ

পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে হানিমুনে এসে মারধরের শিকার হয়েছেন মনিরুল ইসলাম নামের এক পর্যটক। যারা মারধর করেছে তাদের সঙ্গে পালিয়ে গেছেন তার স্ত্রী। বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সকালে কুয়াকাটা জোন পুলিশ পরিদর্শক হাসনাইন পারভেজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে কুয়াকাটা জিরোপয়েন্ট ফ্রাই মার্কেট সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে। এ সংবাদ পেয়ে পুলিশ মনিরকে হেফাজতে নিলেও উদ্ধার করতে পারেনি ওই গৃহবধূকে। তবে সাবেক প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন মনির। ভুক্তভোগী মনির বরগুনা জেলার আনোয়ার হোসেনের ছেলে মনিরুল ইসলাম। তিনি দীর্ঘদিন সিঙ্গাপুর ছিলেন।

ভুক্তভোগী জানান, পাঁচ দিন আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে করি। মঙ্গলবার সকালে স্ত্রীর আবদার মেটাতে কুয়াকাটায় নিয়ে আসি। একই দিন সন্ধ্যায় কুয়াকাটায় এসে হোটেল তাজে অবস্থান করি। পরে সৈকতে ঘোরাঘুরির পরে রুমে আসি, কিন্তু আমার স্ত্রীর অনুরোধে আবার সৈকতে যাই।

তিনি আরও জানান, আমার অনিচ্ছাসত্ত্বেও সেদিকে গেলে হঠাৎ আমার ওপর ৪ থেকে ৫ জন লোক আক্রমণ করে। তখন আমি বাঁচার চেষ্টা করি ও আমার স্ত্রীকে আঁকড়ে ধরি। তবে আমাকে বাঁচানোর চেষ্টা না করে, সে তাদের সঙ্গে পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক হাসনাইন পারভেজ জানান, মঙ্গলবার রাতে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মারধরের শিকার পর্যটককে উদ্ধার করা হয়েছে। ভুক্তভোগীর শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আমাদের কয়েকটি টিম আশপাশে খোঁজাখুঁজি করে ভুক্তভোগীর স্ত্রীকে পায়নি। ভুক্তভোগীকে তার পরিবারের কাছে হ'স্তান্তর করা হয়েছে।

Check Also

পরকীয়া কি সামাজিক নাকি মানসিক রোগ?

পরকীয়া একটি সুন্দর সংসার ও সমাজকে ছারখার করে দিচ্ছে। পরকীয়ার কবলে পড়ে ধ্বংস হচ্ছে সংসার, …