Breaking News

ফুসফুস সহজে পরিষ্কার করার উপায়

আপনার ফুসফসকে – কিছু খারাপ এবং ক্ষতিকারক অভ্যাস যেমন ধূমপান ছেড়ে দেবার কথা চিন্তা করা কারোর পক্ষে অসম্ভব মনে হয়। আপনি যদি ৫ বছর ধরে ধূমপান করে থাকেন সেক্ষেত্রে এই নেশা আপনার কাছে বিপদজনক। ধূমপান আপনার স্বাসযন্ত্র প্রণালীর মারাত্মক ক্ষতি সাধন করে। দু'র্বল স্বাসযন্ত্র আপনার শরীরে যেকোন জটিল রোগকে ডেকে আনতে পারে।

আপনার সুস্বাস্থ্যর জন্যই ধূমপান ছেড়ে দেওয় আপনার এখন অবশ্য কর্তব্য। কিন্তু সমস্যার সমাধান করতে আমাদের আরো গভীরে যেতে হবে। আমাদের শরীরকে সুস্থ ও সতেজ রাখতে আমাদের স্বাসযন্ত্রকে পরিষ্কার রাখতে হবে। আসুন আমরা কিছু উপায় জেনে নেব কিভাবে আমরা আমাদের ফুসফুসকে পরিষ্কার রাখতে পারি, পরে আমাকে ধন্যবাদ দিতে ভুলবেন না কিন্তু ….

প্রতিটি সিগারেট প্যাকেট আপনার ফুসফুসকে মৃত্যুর দিকে একহাত করে ঠেলে দেয়। আপনার দরকার কিছু সাধারন গৃহস্থ উপাদানসমূহ যা আপনার ফুসফুসকে পরিষ্কার রাখতে সহায়তা করে ।

১ টি আদার টুকরো, দুই চা চামচ হলুদ বাটা, ১ লিটার জল, ৪০০ গ্রাম রসুন এবং ৪০০ গ্রাম করাইতে লাল করে ভাজা চিনি । একটি পাত্রে জল গরম করুন এরপর চিনি, রসুন বাটা, আদা বাটা ও হলুদ বাটা গরম জলে মিশিয়ে দিন । এরপর গরম মিশ্রণটি কিছুসময় ঠান্ডা হতে দিন । এরপর এই মিশ্রণটি একটি এয়ারটাইট কনটেইনারের মধ্যে ঢুকিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন । এই মিশ্রণটি প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ও সন্ধ্যায় ২ চামচ করে খান যা আপনার ফুসফুসকে কয়েক দিনের মধ্যেই পরিষ্কার করে তুলবে।

যে ৬টি খাবার বাদ দিলে যৌ*বন ধরে রাখতে পারবেন দীর্ঘদিন

সারা দিন আপনি কী খাচ্ছেন তার ওপরে আপনার সুস্থতার সিংহভাগ নির্ভরশীল। স্বাস্থ্যকর খাবার যেমন আপনাকে রাখে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল এবং হাসিখুশি, তেমনি কিছু খাবার আপনার স্বাস্থ্যের বারোটা বাজিয়ে আপনাকে অকালেই বুড়িয়ে ফেলতে পারে। চিনে নিন এমন কিছু খাবারকে যেগুলো আপনি রোজ খাচ্ছেন, কিন্তু এগুলো থেকে দূরে থাকলেই আপনার যৌবন ও সৌন্দর্য অটুট থাকবে দীর্ঘদিন। নিজেকে আজীবন সুস্থ ও তারুণ্যে ভরপুর পাবেন।

১) উচ্চ গ্লাইসেমিক ইনডেক্সের খাবার
ময়দার তৈরি সাদা রুটি, পাস্তা, কেক ইত্যাদি হলো এমন সব খাবার যা খাওয়ার সাথে সাথে আপনার শরীরে গ্লুকোজ এবং ইনসুলিন বেড়ে যায়। এ কারণে এসব খাবার খেলে বাড়তে পারে ব্রণের উপদ্রবও। ত্বকের বারোটা বাজিয়ে এরা কম বয়সেই আপনার চেহারায় ফেলে বয়সের ছাপ।

২) চিনি
ত্বকের জন্য সম্ভাব্য সবচাইতে খারাপ খাদ্য হলো চিনি। আমাদের বয়স বাড়াতে এর অবদান সবচাইতে বেশি। এরা কোলাজে এবং ইলাস্টিন ধ্বংস করে ত্বককে করে ফেলে বয়স্ক। এর পাশাপাশি এরা অকালেই আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয় আর বাড়ায় ক্যান্সারের ঝুঁকি। তাই মিষ্টি কিছু খেতে ইচ্ছে হলে চিনিতে ভরপুর ক্যান্ডি বারের বদলে বরং মিষ্টি কোনো ফলের দিকে হাত বাড়ান।

৩) অ্যালকোহল
যে কোনো রকমের অ্যালকোহল আপনার শরীরকে পানিশুন্য করে দেয় আর ত্বককে করে তোলে প্রাণহীন।

৪) ক্যাফেইন
ক্যাফেইন এক ধরণের ডাইইউরেটিক, তাই এটাও আপানাকে পানিশূন্য করে দিতে পারে সহজেই। এটা আপনার শরীরে কর্টিসল উৎপাদনও বাড়ায়, জাকে বলা হয় স্ট্রেস হরমোন। বেশি কর্টিসল মানেই দ্রুত হয়ে ওঠে বয়স বৃদ্ধির প্রক্রিয়া।

৫) ভাজাভুজি
তেলে ভাজা খাবার যতই মুখরোচক হোক না কেন, তা আপনার শরীরে ফ্যাট ইনটেক যেমন বাড়ায় তেমনি বাড়ায় অয়েল বিল্ডআপ। এর পাশাপাশি ভাজাভুজি খাবার ফলে শরীরে ব্যাকটেরিয়া আক্রমন করে বেশি, ফলে ত্বকে দেখা যায় ব্রণের উপদ্রব।

৬) প্রক্রিয়াজাত খাবার
প্রক্রিয়াকরণের ফলে খাবারের উপকারিতা কমে যায়। এ ছাড়াও প্রক্রিয়াজাত খাবারে সোডিয়াম এবং চিনির পরিমাণ বেশি থাকে যা বয়স বাড়িয়ে তোলে।

৭) আর্টিফিশিয়াল সুইটেনার এবং রঙ
এদের তো পুষ্টিগত কোনো উপকারিতা নেই-ই, বরং এরা অ্যালার্জির উদ্রেক করতে পারে অনেকের শরীরে। অনেক সময়ে আবার এসব রাসায়নিক আপনার শরীরে জমা হয়ে থাকতে পারে, যার ফলে বার্ধক্য এগিয়ে আসে আরও দ্রুত।

৮) লবণ
বিশেষ করে আয়োডিনযুক্ত লবণ মোটেই ত্বকের জন্য ভালো নয়। লবণ কোষের স্ফীতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। বেশি লবণ খাওয়া তো অবশ্যই অস্বাস্থ্যকর। এ কারণে খাদ্যে লবণের মাত্রা রাখুন পরিমিত।

৯) রেড মিট
রেড মিটে থাকে উচ্চমাত্রার কারনিটিন যা র'ক্তনালিকার দেয়াল শক্ত করে তোলে, কম বয়সেই বুড়িয়ে তোলে আপনাকে। (মূল: Gwen Lucas, wellnessbin)

Check Also

ছোটদের পছন্দের মুচমুচে আলুর চিপস তৈরির সহজ পদ্ধতি জেনে নিন

উপকরণঃ ২টি বড় আলু, ৩টেবিল চামচ লবণ, ১ চা চামচ বিট লবণ, ১/২ চা চামচ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.